বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় মিথ্যা মামলায় রিক্সাচালক কারাগারে

৬৬

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া

কাঙ্খিত টাকা না দেওয়ায় ডাকাতির মামলায় জড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে বগুড়ার কাহালু থানার পুলিশের বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার সকালে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন ভূক্তভোগির পরিবার। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কাহালু উপজেলার পাতানজো গ্রামের মৃত আহাম্মদ আলীর ছেলে মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় প্রতিবেশি চাচার সাথে ২ শতাংস জায়গা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিবাদ চলে আসছিল। ঐ বিবাদে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান খানের নিকট মিমাংসার জন্য বলা হলে তিনি তাদের  চাচার পক্ষ নেন। চেয়ারম্যানের যোগসাজসে তাদের চাচা গোলাম মোস্তফা কোন প্রকার মারপিটের ঘটনা না ঘটলেও তাদের বিরুদ্ধে কাহালু থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এদিকে গত ২৯ এপ্রিল দুপুরে কাহালু থানার পুলিশ তাদের বাড়িতে গিয়ে থানায় উভয় পক্ষের শালিশের কথা বলে জাহাঙ্গীরের ভাই গরীব রিক্সা চালক মোঃ একছার আলীকে ডেকে নিয়ে গিয়ে আটক করে রাখে। এরপর এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে থানায় গেলে থানার এসআই তাকে ছেড়ে দিতে ১ লাখ টাকা দাবি করে। উক্ত টাকা দিতে অস্বীকার করলে ডাকাতি, ছিনতাই, ও অস্ত্র মামলা দেয়ার হুমকী প্রদান করেন। পরবর্তীতে কাহালু উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়রসহ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান একছার আলীকে ছেড়ে দেয়ার সুপারিশ করলে পুলিশ ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। পরে তাকে একটি মিথ্যা ডাকাতি মামলায় জড়িয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে গরীব রিক্সা চালক পরিবারকে পুলিশের দেয়া মিথ্যা মামলার হাত থেকে উদ্ধার করতে পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তা ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে গ্রেফতারকৃত একছার আলীর ভাই আনিছার রহমান, মোঃ বাদল ফকির, চাচা রাশিদুল ইসলামসহ পরিবারের নারী ও শিশু সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।