ধুনটে নারীর কবজি কাটা ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতারঃ ৪

133

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার ধুনটে নারীর কবজি কাটা ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো ওই মামলার আসামি ভান্ডাবাড়ী ইউনিয়নের কৈয়াগাড়ি গ্রামের আল আমিন (২৪), বিপ্লব মিয়া (২৫), রনি খাতুন (২০) ও ময়না খাতুন (২৫)। জানা গেছে, উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের কৈয়াগাড়ি গ্রামের শেখ রাসেল স্মৃতি ক্লাবের সদস্য ইসমাইল হোসেন,কফিল, বিপ্লব ও ফটিক মিয়ার সাথে দির্ঘ দিন থেকে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি ওই ক্লাবের সোলার প্যানেলের ব্যাটারী চুরির ঘটনা ঘটে। এঘটনাকে কেন্দ্র করে রবিবার রাতে বিপ্লব ও আলামিন ক্লাবে গিয়ে কফিল উদ্দিনের কাছে চুরি যাওয়া ব্যাটারীর ক্ষতি পুরন চায়। এতে উভয় পক্ষে মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরের দিন সোমবার সকালে আলামিনের চাচা আব্দুল মজিদ স্থানীয় গোসাাইবাড়ি বাজারে যাওয়ার সময় কফিল উদ্দিন ও তার লোকজন মজিদকে মারধর করে । খবর পেয়ে আলামিন ও বিপ্লব তাদের লোকজন লাঠি সোডা, রাম দা নিয়ে হামলা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে প্রতিপক্ষের রাম’দার আঘাতে কফিলের স্ত্রী শাহানা খাতুনের বাম হাতের কব্জি হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়। খবর পেয়ে ঘটনার দিনই শেরপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এ ঘটনায় কৈয়াগাড়ি গ্রামের শাহানা খাতুনের স্বামী কফিল উদ্দিন বাদী হয়ে ১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করে। সেই মামলার আসামি হিসেবে ৪ জনকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার সকালে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ধুনট থানার এসআই শাহীনুর রহমান। ধুনট থানার ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, এ ঘটনায় কফিল উদ্দিন একটি মামলা দায়ের করে। সেই মামলার আসামি হিসেবে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.