আপনি ফেসবুক আনইনস্টল করেছেন? তবুও আপনার প্রতি মুহূর্ত নজরে! কী ভাবে?

ফেসবুক-এ একগুচ্ছে অ্যাপ থাকে, যাতে ঢুকলেই আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চলে যায় অ্যাপ প্রস্তুতকারী সংস্থার হাতে৷ আপনি হয়তো ভাববেন, ফেসবুক থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেই মুক্তি৷

0 ১১৫

ফেসবুক যে প্রতিটি নাগরিকের গতিবিধি নজরে রাখে, তা আগেই জানা গিয়েছিল৷ নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁসেরও অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে৷ ফেসবুক-এ একগুচ্ছে অ্যাপ থাকে, যাতে ঢুকলেই আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চলে যায় অ্যাপ প্রস্তুতকারী সংস্থার হাতে৷ আপনি হয়তো ভাববেন, ফেসবুক থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেই মুক্তি৷

না৷ বিষয়টি আদপেই সহজ নয়৷ তার প্রমাণ মিলল, ব্রিটেনের সংস্থা প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনালের গবেষণায়৷ এই সংস্থার গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যে কোনও অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীকেই ট্র্যাক করে মার্ক জুকারবার্গের সংস্থা৷

ফেসবুকে প্রোফাইল ডিঅ্যাক্টিভেট বা ফেসবুক অ্যাপ আনইনস্টল করলেও, প্রতিটি নাগরিকের গতিবিধি ট্র্যাক করা হয়৷ গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অ্যাপ ডেভেলপাররা প্রতিটি নাগরিকের ডেটা ফেসবুক সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট কিট-এর মাধ্যমে ডেটা শেয়ার করে ফেসবুককে৷

সমীক্ষা বলছে, অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ৩৪টি অ্যাপ ফেসবুক-কে নাগরিকের ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করে৷ অ্যান্ড্রয়েডের যতগুলি অ্যাপ রয়েছে, তার মধ্যে ৬১ শতাংশই স্বয়ংক্রিয় ভাবে নাগরিকদের তথ্য ফেসবুককে শেয়ার করে৷

রিপোর্টে বলা হচ্ছে, কারও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না-থাকলেও, বা ফেসবুক অ্যাপ আনইনস্টল থাকলেও, ডেটা শেয়ার চলতে থাকে প্রতি মুহূর্তে৷ তাই কোনও অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীই সুরক্ষিত নন৷